স্মার্ট টিভি কেনার পূর্বে যে দিকগুলো অবশ্যই ভালভাবে দেখে নিতে হবে

0
213
স্মার্ট টিভি কেনার পূর্বে যে দিকগুলো অবশ্যই ভালভাবে দেখে নিতে হবে

স্মার্ট টিভি কিনতে চান তবে আপনাকে অবশ্যই গুণগত মান যাচাই করতে হবে।

সাধারণ টিভি থেকে স্মার্ট টিভির প্রসেসর অনেক উন্নত হয় এবং এতে অপারেটিং সিস্টেম থাকে। বাংলাদেশে বর্তমান মার্কেটে সাধারণত অ্যান্ড্রয়েড ও ওয়েব ওএস অপারেটিং সিস্টেমের স্মার্ট টিভি পাওয়া যায়। বর্তমানে স্মার্ট টিভিতে অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করা হয়ে থাকে। স্মার্ট টিভি বলতে আমরা বুঝি, যে টেলিভিশন দিয়ে ইন্টারনেট চালানোর সুবিধা এবং এর মাধ্যমে বর্তমান সময়ের স্মার্ট ডিভাইসের সুবিধা পাওয়া যায়। স্মার্ট টিভিতে ইন্টারনেটভিত্তিক বিভিন্ন অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহারের সুযোগ রয়েছে। যেমন, স্কাইপে, টুইটার, ফেসবুক, ইউটিউব ইত্যাদি। স্মার্ট টিভিতে ইন্টারনেট ব্রাউজ করার সুবিধা থাকে।

স্মার্ট টিভি কেনার পূর্বে যে দিকগুলো অবশ্যই ভালভাবে দেখে নিতে হবে

আপনারা যাঁরা নতুন করে টিভি কেনার কথা ভাববেন, তাঁদের অবশ্যই দেখে নিতে হবে টিভিতে ওয়াই–ফাই সুবিধা আছে কি না। তবে টিভিতে ওয়াই–ফাই রেডি থাকলেও তাতে ইন্টারনেট চালাতে পৃথক ডংগল লাগবে।
স্মার্ট টিভি কেনার পূর্বে যাচাই করে নিতে হবে এতে ইউএসবি পোর্ট সুবিধা আছে কি না। ইউএসবি পোর্ট থাকলেই যে এক্সটার্নাল হার্ডড্রাইভ বা পেনড্রাইভ সমর্থন করবে এমনটি নাও হতে পারে। স্মার্ট টিভি কেনার আগে বিষয়টি একটি পোর্টেবল হার্ডডিস্ক বা কোন ধরনের ডিজিটাল ফরম্যাট সমর্থন করে, তা অবশ্যই যাচাই করে নিতে হবে। স্মার্ট টিভিতে একাধিক এইচডিএমআই পোর্ট আছে কি না, তা পরীক্ষা করে দেখুন। কমপক্ষে দুটি এইচডিএমআই পোর্ট না থাকলে সেই স্মার্ট টিভি কেনা আপনার কখনই উচিত হবে না। স্মার্ট টিভি কেনার আগে তাতে ভিউয়িং অ্যাঙ্গেল ও শব্দের মান যাচাই করে দেখা উচিত। বর্তমান সময়ে টিভি কিনলে আমরা আপনাকে এলইডি স্মার্ট টিভি কেনার কথায় বলবো।

স্মার্ট টিভি কেনার পূর্বে যে দিকগুলো অবশ্যই ভালভাবে দেখে নিতে হবে

বর্তমান বাজারে বিভিন্ন মাপের স্মার্ট টিভি পাবেন। তবে তা কেনার আগে আপনার প্রয়োজন বা রুমের আয়তনের কথা ভেবে কিনতে হবে। যদি টিভি থেকে বসে দেখার দূরত্ব নুন্যতম আট ফুট হয় তবে আপনি ৩২ ইঞ্চি থেকে সর্বোচ্চ ৬৫ ইঞ্চি স্মার্ট টিভি ব্যবহার করতে পারেন। টিভি যত বড় হবে তা দেখতেও তত সুবিধা হবে। আপনার বাজেটের মধ্যে এ মাপের যেকোনো মডেল কিনতে পারেন। আপনার বাজেটের ওপর নির্ভর করে, আপনি এর মধ্যে কোন সাইজের টিভি কিনবেন। এছাড়াও একটি পরিপূর্ণ স্মার্ট টিভিতে ইন্টারনেট কানেক্টিভিটিতে কেব্‌ল ও ওয়াই-ফাই উভয়ই আছে কিনা। নেট ব্রাউজিং সুবিধা আছে কিনা। অ্যাপস ইনস্টল সুবিধা আছে কিনা।স্ক্রিন শেয়ারিং সুবিধা আছে কিনা। প্রয়োজনীয় কিছু জনপ্রিয় অ্যাপ বিল্টইন আছে কিনা তা দেখে নিতে হবে।

বর্তমানে আমাদের দেশে স্মার্ট টিভির চাহিদা বাড়ছে বলে দেশি প্রতিষ্ঠানের সংযোজন করা টিভির বাজারও বড় হচ্ছে। স্মার্ট টিভি কেনার সময় এর স্মার্ট ফিচারগুলো ভালো করে দেখে নেওয়া উচিত। বিশেষ করে টিভিটি কতটা ইউজার ফ্রেন্ডলি। র‍্যাম এবং রম কত জিবি, কী প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে ইত্যাদি দেখতে হবে। অতি শিগগিরই ওয়ালটন বাজারে নিয়ে আসছে ভয়েস কন্ট্রোল নিয়ন্ত্রিত স্মার্ট টিভি। এই টিভির সফটওয়্যার নিজেরাই ডেভেলপ করছে। যা বাংলা ভাষা রিড করতে পারবে। ফলে গ্রাহক কথা বলেই টিভিতে বিভিন্ন কমান্ড দিতে পারবেন। ইউটিউবে কোনো কনটেন্ট খুঁজতে রিমোটে টাইপ করতে হবে না। রিমোট ছাড়াই গ্রাহকের হ্যান্ডসেটে ইনস্টলকৃত ই-শেয়ার অ্যাপসের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণ করা যাবে। ই-শেয়ার থেকে গ্রাহক তার সুবিধামতো কি রিমোট, টাচ রিমোট, মাউস ও এয়ার মাউস—মোট চারটি ভিন্ন ফরম্যাটের রিমোট অপশন বেছে নিতে পারবেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here